রাস্তা নির্মাণ নিয়ে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব মালদায়, মারামারি দুই পক্ষের

6
kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদা: সড়ক নির্মাণ নিয়ে জেলা পরিষদের সদস্য ও পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির অনুগামীদের মধ্যে বিবাদ। একে অপরের বিরুদ্ধে মারধর ও গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ তুলেছেন। দুই পক্ষ থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। গোটা ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়ায় মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লকে। গতকাল বিকেলে প্রথমে হরিশ্চন্দ্রপুর ২ নম্বর ব্লকের অন্তর্গত সাদলিচক অঞ্চলের কুমেদপুর এলাকায় ও পরে মালিওর ১ নম্বর গ্রামপঞ্চায়েতের অর্জুনা এলাকায় ঘটনা দুটি ঘটেছে।

জেলা পরিষদের সদস্যা মমতাজ বেগমের স্বামী তথা তৃণমূল নেতা আমিনুল হক বলেন, ‘আমার স্ত্রী ওই এলাকার জেলা পরিষদের প্রতিনিধি। ভোটের আগে রাস্তা তৈরি করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম। সেই রাস্তার অনুমোদন মিলেছে। স্থানীয় পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি জুবেদা বিবির স্বামী আশরাফুল হক সেই কাজ ঘুস দিয়ে নেওয়ার দাবি করে। যে নির্মাণ সংস্থা ওই কাজ পেয়েছে তাঁদের সদস্যরা গতকাল বিকেলে এলাকায় আসে। তাঁদের থাকার ব্যবস্থা করার সময় আশরাফুলের ভাই কিছু দুষ্কৃতীদের সঙ্গে নিয়ে আমাদের ওপর চড়াও হয়। ওরা আমার সঙ্গে সঙ্গে দুই ছেলেকে মারধর করে।

এদিকে, হরিশ্চন্দ্রপুর ২ ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি জুবেদা বিবির পাল্টা অভিযোগ, জেলা পরিষদের সদস্যের অনুগামীরা তাঁর স্বামীকে প্রাণে মারার হুমকি দেয় ও গাড়ি ভাঙচুর করে। আমিনুলের দুই ছেলে সহ ১০-১২ লোহার রড, হাঁসুয়া নিয়ে এসে আমার স্বামীকে খুঁজতে থাকে। স্বামীকে না পেয়ে পরিবারের লোকজনকে মারধর করে। হরিশ্চন্দ্রপুর থানার পুলিশ জানিয়েছে, দু’পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে।