Udaipur Killing : কানাইয়ালালের নিরাপত্তায় গাফিলতি,রাজস্থানে এসপি-সহ ৩২ আইপিএসের গণবদলি!

103
32ips transferred in rajasthan
কানাইয়ালালকে সুরক্ষায় গাফিলতি, রাজস্থানে ৩২ আইপিএস বদলি

মহানগর ডেস্ক: গণবদলি! উদয়পুর কাণ্ডে কড়া সমালোচনার জেরে এসপি-সহ ৩২ জন আইপিএসকে বদলি করা হল। পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল নিহত দরজি কানাইয়ালাল সোশ্যাল মিডিয়ায় নুপূর শর্মাকে নিয়ে পোস্টের জন্য হুমকি পাওয়ার কথা তাদের জানালেও তারা কোনও নিরাপত্তার ব্যবস্থা করেনি। মঙ্গলবার কানাইয়ালালের দোকানে পোশাকের মাপ দেওয়ার অছিলায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার মুণ্ডচ্ছেদ করা হয়। মুণ্ডচ্ছেদের পর রিয়াজ আখতারি ও মহম্মদ ঘাউস নামে দুজন নৃশংস খুনের ঘটনা ভিডিওয় তুলে তা পোস্ট করে। আলাদা একটি ভিডিওয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে হুমকি দেওয়া হয়।

তারপরই আগুন জ্বলে ওঠে গোটা উদয়পুরে। ওই দুজনকে পুলিশ গ্রেফতার করলেও ক্ষোভের আগুন নেভেনি। প্রতিবাদে ফেটে পড়ে মানুষ। সর্বস্তরেই এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের নিন্দা হয়। সমালোচনায় সরব হয় হিন্দু সংগঠনগুলি। সোচ্চার হয় মুসলিম সংগঠনের লোকজনেরা। তদন্তকারীরা জানান, দুজনের সঙ্গে পাকিস্তানে দাওয়াত-এ-ইসলামির যোগ রয়েছে। ২০১৪ সালে দুজনের একজন করাচি গিয়েছিল। রাজস্থানের পুলিশ প্রধান এমএল রাঠের জানিয়েছেন এটি জঙ্গিদেরই কাজ এবং খুন পূর্বপরিকল্পিত।

২০১৪ সালে প্রধান অভিযুক্ত করাচি গিয়ে দাওয়াতের সঙ্গে যোগাযোগ করে। এটি সন্ত্রাসের ঘটনা বলেই মনে করা হচ্ছে। এই  নৃশংস খুনের তদন্তের দায়িত্ব এনআইএ-কে দিয়েছে কেন্দ্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। গতকাল কড়া নিরাপত্তার মধ্যে ধৃত দুজনকে আদালতে নিয়ে যাওয়া হয়। আদালত তাদের চোদ্দ দিনের বিচারবিভাগীয় হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে। আদালতে নিয়ে যাওয়ার সময় সেখানে জমায়েত হওয়া মানুষেরা স্লোগান দেয়। খুনের পর গোটা রাজস্থানেই একমাসের জন্য একশো চুয়াল্লিশ ধারা জারি করা হয়েছে। এদিন রথযাত্রায় একটি ধর্মীয় মিছিলের জন্য আঁটোসাঁটো নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী।