শুরু হতে চলেছে ১২-১৪ বছর বয়সীদের টিকাকরণ, বড় ঘোষণা কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের

40

মহানগর ডেস্ক: বছরের শুরুতে যেভাবে করোনা থাবা বসিয়েছিল, তাতে গোটা দেশজুড়ে আতঙ্ক ছেয়ে গিয়েছিল। করোনার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ায় প্রাণ গিয়েছে বহু মানুষের। তবে এই মুহূর্তে ক্রমশ স্বাভাবিক হচ্ছে দেশ। কিন্তু করোনার টিকাকরণ কর্মসূচিতে একদমই ঢিলেমি দিতে রাজি নয় মোদি সরকার। যে কারণে এবার সোমবার দিন এক বড় ঘোষণা করল স্বাস্থ্যমন্ত্রক। ১৫-১৮ বছর বয়সীদের করোনাটিকা দেওয়ার পর, এবার ১২-১৪ বছর বয়সীদের জন্য করোনাটিকা চালুর কথা জানাল কেন্দ্রীয় সরকার।

 

বছরের শুরুতে করোনার বাড়বাড়ন্তের জন্য পুনরায় জারি হয়েছিল কড়া বিধি-নিষেধ। পাশাপাশি নজরদারি ছিল করোনা টিকাকরণের কর্মসূচিতে। যার দরুন ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সীদের টিকাদান চালু হয়। জারি থাকে বুস্টার ডোজ দেওয়া। আজ কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এর পাশাপাশি ১২ থেকে ১৪ বছর বয়সীদেরও টিকা দেওয়া হবে। অন্যদিকে ষাটোর্ধ্বদের জন্য বুস্টার ডোজের ছাড়পত্রও দেওয়া হয়েছে। এটি টুইট করে নিজে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য। বুধবার দিন থেকেই শুরু হবে এই কর্মসূচি।

বর্তমানে করোনা সংক্রমণের মাত্রা নিম্নমুখী হলেও, ছোটোদের টিকাকরণে নজর দিচ্ছ সরকার। এদিন সংস্থার ভ্যাকসিন রেগুলেটরি কমিটির প্রধান শ্রীনিবাস কোসারাজু বলেছেন, “১২ থেকে ১৪ বছরের জন্য কর্বেভ্যাক্স টিকা দ্রুত নিয়ে আসার আবেদন জানানো হয়েছিল কেন্দ্রীয় ড্রাগ কন্ট্রোলারের কাছে”। এরই পাশাপাশি খবর মিলছে ৫ থেকে ১২ বছর পর্যন্ত টিকা আসতে পারে সেপ্টেম্বরে।

এদিন টুইটারে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, “শিশুরা নিরাপদে থাকলে, দেশ নিরাপদে থাকবে। আমি আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি ১৬ মার্চ থেকে ১২ থেকে ১৩ এবং ১৩ থেকে ১৪ বছর বয়সী শিশুদের করোনাটিকা দেওয়া শুরু হচ্ছে। পাশাপাশি প্রত্যেক ষাটোর্ধ্বরা এবার থেকে বুস্টার ডোজ পাবে। শিশুদের পরিবার এবং ষাটোর্ধ্বদের টিকাকরণের জন্য আহ্বান জানাচ্ছি সকলকে”। এবারের চলতি নিয়ম অনুযায়ী কোমর্বিডিটি ছাড়াও ষাটোর্ধ্বরা পাবেন বুস্টার ডোজ। করোনাটিকা নেওয়ার ৩৪ সপ্তাহ পর দেওয়া যাবে এই ডোজ। ফোনে এসএমএস যাবে এই নিয়ে।