পরিকল্পনা করেই JNU-তে গেরুয়া তাণ্ডব? ভাইরাল স্ক্রিনশটে ‘প্রমাণ’ মিলছে ষড়যন্ত্রের 

7

Highlights

  • রড-বাঁশ দিয়ে মেরে মাথা ফাটানো হয়েছে ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষের
  • বাদ যাননি অধ্যাপিকা সুচরিতা সেনও। তাঁরও মাথায় সজোরে আঘাত করা হয়েছে
  • বারবার কেন বাঙালি ও পড়ুয়াদের নিশানায় নিচ্ছে গেরুয়াপন্থীরা?

মহানগর ওয়েবডেস্ক: জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ঢুকে রবিবার সন্ধেবেলা মুখে কাপড় চাপা দিয়ে তাণ্ডব চালায় একদল দুষ্কৃতীরা। ঘটনার পর থেকেই সন্দেহের তির ঘুরেছে গেরুয়া ছাত্র সংগঠন এবিভিপির দিকে। তাদের তরফে দায় অস্বীকার করা হলেও ঘটনার কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন কিছু হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটের স্ক্রিনশট শেয়ার করা হয়েছে যাতে সন্দেহ আরও গূঢ় হয়েছে। মনে করা হচ্ছে, যথেষ্ট পরিকল্পনা করেই এই হামলা চালানো হয়েছিল দেশের অন্যতম সেরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ওপর।

বিগত কয়েকদিন ধরেই ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন চালাচ্ছিল বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। দোসর হিসেবে ছিল নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি প্রতিবাদও। এই সবকিছু ‘দেশদ্রোহী কার্যকলাপ’ বলে মনে করছে এবিভিপি। সেই কারণেই এই হামলা চালানো হয়েছে, অন্তত ভাইরাল হওয়া স্ক্রিনশট থেকে তেমনটাই মনে করা হচ্ছে। ভাইরাল হওয়া একটি স্ক্রিনশটে হোয়াটসঅ্যাপের গ্রুপ চ্যাট দেখা যাচ্ছে। যার নাম ‘Friends of RSS‌’‌। সেখানে একজনকে লিখতে দেখা গিয়েছে, ‘‌আমরা এখানে ২৫–৩০ জন লোক আছি, দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকজনকে খাজন সিংয়ের পুকুরের দিক দিয়ে ভিতরে ঢুকতে হবে।’‌

হোয়াটসঅ্যাপের কথোপকথনে দেখা যাচ্ছে রেণু সাইনি নামে আরএসএস নেতা কথা বলছেন যোগেন্দ্র শৌর্য ভরদ্বাজের সঙ্গে। তিনি লিখেছেন, ‘এবার পাখন্ডিদের মারতে হবে। কেবল একটাই ওষুধ রয়েছে’। বলা হচ্ছে বাম সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আপনি আমাদের সঙ্গে আসুন। মনে করা হচ্ছে, এরপরই ক্যাম্পাসে ঢুকে মহিলা হস্টেলে এই হামলা চালায় গেরুয়াপন্থী গুণ্ডারা। হোস্টেলের ও ক্যাম্পাসের আলো নিভিয়ে দিয়ে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের ওপর আক্রমণ চালায় তারা।

(কোনও স্ক্রিনশটের সত্যতা মহানগর যাচাই করেনি)