প্রদেশ সভাপতি পদে চাই কানহাইয়াকেই, সোনিয়াকে চিঠি বিহার কংগ্রেসের!

5

নিজস্ব প্রতিনিধিকানহাইয়া কুমারকে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি করা হোক। এমনই দাবি তুললেন বিহার বিধানসভার বিধায়কদের একটা বড় অংশ। এই দাবিতে দলের হাইকমান্ড সোনিয়া গান্ধিকে চিঠিও দিয়েছেন তাঁরা। সোনিয়ার সম্মতি মিললেই বিহার কংগ্রেসের সর্বময় কর্তা হয়ে উঠবেন তরুণ তুর্কি কানহাইয়া।

ঠিক দশ বছর আগে দিল্লির জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে  পিএইচডি করার সুযোগ পান কানহাইয়া। সিপিআইয়ের ছাত্র সংগঠন এআইএসএফের প্রতিনিধিত্ব করে ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সভাপতি নির্বাচিত হন। পরে সংসদে জঙ্গি হামলার মূল চক্রী আফজল গুরুকে সমর্থন করে বক্তৃতা করায় দেশ-বিরোধী দেগে দেওয়া হয় তাঁকে। তার পরেই তামাম ভারতে রাজনীতির অন্যতম জনপ্রিয় মুখ হয়ে ওঠেন বিহারের বেগুসরাইয়ের এই তরুণ। এহেন কানহাইয়াই মঙ্গলবার দুপুরে যোগ দেন কংগ্রেসে।

সিপিআই ছেড়ে কানহাইয়া কংগ্রেসে যোগ দেওয়ায় খুশি বিহার কংগ্রেসও। দলীয় বিধায়কদের একটা বড় অংশই কংগ্রেস বাঁচাতে তাঁকে প্রদেশ সভাপতি পদে চাইছেন। এই দাবি জানিয়ে কংগ্রেস হাইকমান্ড সোনিয়া গান্ধিকে চিঠিও দিয়েছেন ওই বিধায়করা। তাঁর সম্মতি মিললেই প্রদেশ সভাপতি পদে বসানো হবে কানহাইয়াকে। যা বেনজির বলেই দাবি কংগ্রেসের। কারণ দলে যোগ দিয়েই এই প্রথম এত বড় পদে কাউকে বসানো হবে। বক্সারের বিধায়ক মুন্না তিওয়ারি বলেন, কানহাইয়াকে আমরা নেতৃত্বে চাইছি। এই মুহুর্তে বিহার কংগ্রেসের প্রদেশ সভাপতি মদনমোহন ঝাঁ। সূত্রের খবর, তাঁকে সরিয়ে বিধায়কদের দাবি মেনে ওই পদে বসানো হবে কানহাইয়াকে। তাতে যে আদতে দলেরই লাভ হবে, ওপরতলার নেতাদের তাও বোঝাচ্ছেন ওই বিধায়করা।