Home Bengal রাজ্যের বিরুদ্ধে মেট্রোর অভিযোগ খারিজ করল লালবাজার

রাজ্যের বিরুদ্ধে মেট্রোর অভিযোগ খারিজ করল লালবাজার

by Sibapriya Dasgupta
31 views

মহানগর ডেস্ক : নিউ গড়িয়া থেকে <span;>বেলেঘাটা পর্যন্ত মেট্রো স্টেশনের কাজ সম্পূর্ণ করার ক্ষেত্রে পুলিশের কাছ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতি মিলছে না বলে অভিযোগ করেছেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ। সেই অভিযোগ কার্যত খারিজ করে দিল লালবাজার। লালবাজারের দাবি, মেট্রোকে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণের অনুমতি দেওয়া হয়নি, এই তথ্য সঠিক নয়। লালবাজার এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে তথ্য দিয়ে জানিয়ে দিয়েছে কবে কোথায় মেট্রোর কাজের জন্য পুলিশ যান নিয়ন্ত্রণ করেছে। মেট্রো কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে তাদের পাল্টা অভিযোগ, কোনও কাজের জন্য যে সময় তাঁরা চেয়ে নেন, তার মধ্যে কাজ শেষ করে উঠতেই পারেন না মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। এমনকি দেরি হবে এই বিষয়টিও পুলিশকে সঠিক সময় জানানো হয় না। এর ফলে যান নিয়ন্ত্রণে সমস্যায় পড়তে হয় পুলিশকে।

লালবাজারের তরফে মেট্রোর “গড়িমসি”-র এমন একাধিক দৃষ্টান্ত তুলে ধরা হয়েছে। কলকাতা পুলিশের তরফে স্পষ্ট  জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, চিংড়িহাটার কাছে মেট্রোর কাজের জন্য ৩০ দিন যান নিয়ন্ত্রণের অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। পুলিশ সেই অনুমতি দেওয়ার পর নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গিয়েছে। ৫০ দিন পরেও কাজ শেষ হয়নি। বাড়তি সময় যে লাগবে, পুলিশকে সে বিষয়ে অবগত করেননি মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ।

লালবাজার জানিয়েছে, ওই একই লাইনে আরও একটি জায়গায় ২৮৬ থেকে ২৮৭ নম্বর মেট্রো স্তম্ভের মাঝে কাজ শেষ করতে ৪৩ দিন দেরি করেছেন মেট্রোরেল কর্তৃপক্ষ। সময় চাওয়া হয়েছিল ৪৫ দিন। এই কাজ শেষ হয়েছে ৮৮ দিনে। একই ভাবে পুলিশের আরও দাবি, ইএম বাইপাসে কলকাতা আন্তর্জাতিক স্কুলের সামনে ৭৬ মিটার লম্বা স্টিল গ্রিডার বসানোর জন্য গত ২ সেপ্টেম্বর ৬০ দিনের যান নিয়ন্ত্রণের অনুমতি দেওয়া হয়েছিল মেট্রোকে। ১ নভেম্বর সেই অনুমতির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে। মেট্রোরেলের তরফে ২৮ ফেব্রুয়ারি জানানো হয়, ৭ মার্চের মধ্যে কাজ শেষ হয়ে যাবে। কিন্তু তা এখনও চলছে। এখনও পর্যন্ত ১২৭ দিন বাড়তি সময় লেগেছে।

মেট্রো কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশের যুগ্ম বৈঠকে মেট্রো আধিকারিকদের বিরুদ্ধে অসহযোগিতার অভিযোগও তুলেছে লালবাজার। লালাবাজার অভিযোগ করেছে, বৈঠকে মেট্রো আধিকারিকেরা উপস্থিত পর্যন্ত থাকেন না। লালবাজারের অভিযোগ, এর ফলে কাজের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে সমস্যা০ হয়। অভিযোগ, ডিএইচ রোডে মেট্রোর কাজের জন্য ব্যারিকেড করে রাখা হয়েছে। তিন মাসের বেশি সময় ধরে সেখানে কাজ চলছে। এতে যান চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে।

বেলেঘাটা মেট্রো স্টেশনের কাজের জন্য যুগ্ম বৈঠকে পরিদর্শনের পর কলকাতা ট্র্যাফিক পুলিশের তরফে মেট্রো কর্তৃপক্ষকে কিছু পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল বলে জানিয়েছে লালবাজার। কিন্তু সেই কাজ এখনও মেট্রো করে উঠতে পারেনি বলে লালবাজারের অভিযোগ।

লালবাজারের বক্তব্য, চিংড়িহাটা এবং মেট্রোপলিটানের মাঝে মেট্রোর যে কাজ বাকি রয়েছে, তার জন্য আদৌ যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ বা রাস্তা আটকানোর প্রয়োজন নেই। যান চলাচলের মুখ ঘুরিয়ে দিলেই মেট্রোপলিটান ক্রসিংয়ে কাজ করা যাবে।

প্রসঙ্গত, শনিবার সকালে মেট্রোরেলের তরফে অভিযোগ করা হয়, অরেঞ্জ লাইনে বেলেঘাটা মেট্রো স্টেশনের কাজ থমকে রয়েছে। পুলিশের কাছে বার বার যান নিয়ন্ত্রণের অনুমতি চেয়ে চিঠি দেওয়া হচ্ছে। কিন্তু পুলিশের অনুমতি পাওয়া যাচ্ছে না। চিফ কমিশনার অফ রেলওয়ে সেফটি সম্প্রতি অরেঞ্জ লাইনের কাজ খতিয়ে দেখেছেন। মৌখিক ভাবে তিনি জানিয়েছেন, বেলেঘাটা স্টেশনের কাছে যাত্রীদের সুবিধার্থে আরও ৯০ মিটার রাস্তা তৈরি করতে হবে। সেই কাজের জন্যই ট্র্যাফিক নিয়ন্ত্রণ প্রয়োজন হবে। পুলিশের সঙ্গে বৈঠক করেও লাভ হয়নি বলে মেট্রোরেল  কর্তৃপক্ষ দাবি করেন। বিকেলে পাল্টা মেট্রোর বিরুদ্ধে কাজ সঠিক সময়ে শেষ না করার অভিযোগ তুলল লালবাজার। পাশাাপাশি খারিজ করে দিল লালবাজার তথা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে মেট্রোরেলের কাজে অসহযোগিতার অভিযোগ।

You may also like

Mahanagar bengali news

Copyright (C) Mahanagar24X7 2024 All Rights Reserved