Home Bengal বাম-কংগ্রেস আসন সমঝোতা সময়ের অপেক্ষা, জানালেন সেলিম

বাম-কংগ্রেস আসন সমঝোতা সময়ের অপেক্ষা, জানালেন সেলিম

by Sibapriya Dasgupta
78 views

মহানগর ডেস্ক : সিপিএম রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম জানিয়েছেন, “কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা সময়ের অপেক্ষা অর্থাৎ প্রায় চূড়ান্ত হওয়ার পথে। আসন সমঝেতার কথা চালু নাহলে বামফ্রন্ট কী প্রথম দফায় ১৬টি আসন ঘোষণা করত? কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতার সম্ভাবনা না থাকলে তো ৪২টি আসনেই আমরা প্রার্থী ঘোষণা করে দিতাম।”
তবে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরীর বক্তব্য থেকে সেই অর্থে বাংলায় বাম-কংগ্রেস জোটের পাকা কথা শোনা না গেলেও তিনি বকেছেন, “আমার সেলিমভাইর (পড়ুন মহম্মদ সেলিম) সঙ্গে কথা হলেও আমাদের হাইকমান্ডের সঙ্গে সিপিএমের শীর্ষ নেতৃত্বের সেই অর্থে কথা হয়েছে কিনা জানা নেই। তবে বাংলায় কংগ্রেসের তরফে আমরা এখনও পর্যন্ত ঠিক করেছি, যেখানে বামেদের জয়ের সম্ভাবনা আছে সেখানে আমরা প্রার্থী দেব না। অন্যদিকে আমরা যেখানে জয়ের সম্ভাবনায় আছি সেখানে আশাকরি বামেরা প্রার্থী দেবে না।”

আজ শনিবার বেলা ৩ টেয় জাতীয় নির্বাচন কমিশন ভোটের নির্ঘণ্ট। তবে তার আগে এখনও বাংলায় ইন্ডিয়া জোট যেমন দানা বাঁধেনি তেমনই এখনও স্পষ্ট করে বোঝা যাচ্ছে না বাম-কংগ্রেস আসন সমঝোতা আদৌ বাংলায় হবে কি না। কেননা সিপিএম ছাড়া বামফ্রন্টের অন্য শরিক আরএসপি,সিপিআই,ফরওয়ার্ড ব্লক কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতায় ইচ্ছুক নয়। বামফ্রন্টের গত বৈঠকেই তিন ফ্রন্ট শরিক জানিয়ে দিয়েছে কংগ্রেসকে আসন ছাড়ার পক্ষে তারা সম্মত নয়। যদি একান্তই কংগ্রেসকে আসন বাংলায় ছাড়তে হয় তাহলে সিপিএম তার ভাগের থেকে কংগ্রেসকে আসন ছাড়ুক।
এদিকে ডায়মন্ড হারবারে আইএসএফ যদি নওশাদ সিদ্দিকিকে প্রার্থী করে তাহলে তাঁকে সিপিএম সমর্থন করবে বলে জানান মহম্মদ সেলিম। তিনি বলেন, “নওশাদ ডায়মন্ড হারবারের প্রার্থী হলে সিপিএম তাঁকে সমর্থন করবে। কংগ্রেসও আগে জানিয়ে ছিল নওশাদ সিদ্দিকিকে তারাও সমর্থন করবে।”

এদিকে মহম্মদ সেলিমের এই বক্তব্যকে কটাক্ষ করে তৃণমূল নেতা কুণাল ঘোষ বলেছেন, “ক্ষমতা থাকলে ৪২টি কেন্দ্রে প্রার্থী দিক সিপিএম। ওদের সব আসনে জামানত বাজেয়াপ্ত হবে। সিপিমের ইনসাফ যাত্রা কি গ্যাস বেলুন ছিল? বাংলায় বাম-কংগ্রেস-আইএসএফ জোট কেথায়? ভুতেরও ভবিষ্যৎ আছে সওপিএমের নেই।”
অন্যদিকে ডায়মন্ড হারবারের নওশাদ সিদ্দিকির প্রার্থী হওয়া নিয়ে ওই জেলার তৃণমূল বিধায়ক সওকত মোল্লা দাবি করেন, “হেলে ধরতে পারে না কেউটে ধরতে চাইছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে দাঁড়ালে লোজে-গোবরে করে দেব।”

এখন দেখার বাংলায় বাম-কংগ্রেস আসন সমঝোতা শেষ পর্যন্ত হয় কি না।

You may also like

Mahanagar bengali news

Copyright (C) Mahanagar24X7 2024 All Rights Reserved