Home Bengal ডিজিপি-র পর রাজ্যের ৪ ডিএমকে সরালো কমিশন, সমালোচনায় তৃণমূল

ডিজিপি-র পর রাজ্যের ৪ ডিএমকে সরালো কমিশন, সমালোচনায় তৃণমূল

by Sibapriya Dasgupta
16 views

মহানগর ডেস্ক : রাজ্যের ৪ জেলার জেলাশাসক বদল করল জাতীয় নির্বাচন কমিশন। এই চারটি জেলা হল পূর্ব মেদিনীপুর, পূর্ব বর্ধমান, ঝাড়গ্রাম এবং বীরভূম। এর আগে রাজ্য পুলিশের ডিজি রাজীব কুমারকে তাঁর পদ থেকে সরিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন।

এদিকে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের এই সিদ্ধান্তকে “মোদী সরকারের নেতৃত্বে জাতীয় নির্বাচন কমিশন চলছে”, বলে হুঙ্কার দিয়েছেন তৃণমূল মুখপাত্র জয়প্রকাশ মজুমদার। অন্যদিকে সিপিএম নেতা তন্ময় ভট্টাচার্য বলেছেন, “গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে আমলারা যে ভাবে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের হয়ে কাজ করেছে, তাই নির্বাচন কমিশনের উচিত এই আমলাদের সম্পর্কে ভালো করে খোঁজ নেওয়া। তাতে দরকার হলে রাজ্যের সব জেলার জেলাশাসকদের বদলি করতে হবে।”

জাতীয় নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, এই চার জেলার জেলাশাসকেরা কেউই কেন্দ্রীয় প্রশাসনিক আইএএস ক্যাডারের অফিসার নন। তাঁরা প্রত্যেকেই  ডব্লিউবিসিএস থেকে পদোন্নতি পেয়ে আইএএস হয়েছেন। তাই তাঁদের তাঁদের জেলাশাসক পদ থেকে সরানো হয়েছে।
তবে শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয়, গুজরাতের দুই পুলিশ সুপারকেও সরে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। ওই দুই এসপি ছোট উদয়পুর এবং আমেদাবাদ গ্রামীণ জেলার দায়িত্বে ছিলেন। বৃহস্পতিবার সরানো হয়েছে পঞ্জাবের পঠানকোট, ফাজিলকা, জলন্ধর গ্রামীণ এবং মালেরকোটলা জেলার চার পুলিশকর্তাকে। তা ছাড়াও ওড়িশার ঢেনকানলের জেলাশাসক এবং দেওগড় ও কটক গ্রামীণের পুলিশ সুপারকে সরাতে বলেছে কমিশন। কমিশনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, অনতিবিলম্বে পঞ্জাবের ভাতিন্ডার এসএসপি এবং অসমের শোনিতপুরের এসপিকে অন্যত্র বদলি করতে হবে। এই দুই পুলিশ আধিকারিকের পরিবারের সঙ্গে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের পারিবারিক সম্পর্ক রয়েছে বলে জানতে পেরেছে কমিশন। পশ্চিমবঙ্গের চার জেলার জেলাশাসককে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশও আজই কার্যকর করার নির্দেশ দিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। তবে এই ঘটনায় যে ভাবে পশ্চিমবঙ্গের শাসকদল কমিশন এবং মোদীর সরকারের সমালোচনায় মুখর হয়েছে, সেটা অন্য রাজ্যে হয়নি।

You may also like

Mahanagar bengali news

Copyright (C) Mahanagar24X7 2024 All Rights Reserved