Mayawati: ‘ধর্মের বিরুদ্ধে আপত্তিকর ভাষা ব্যবহারকারীদের জেলে দেওয়া উচিত ‘, দাবি BSP প্রধানের

118
Mayawati: 'ধর্মের বিরুদ্ধে আপত্তিকর ভাষা ব্যবহারকারীদের জেলে দেওয়া উচিত ', দাবি BSP প্রধানের

মহানগর ডেস্ক: সোমবার বিএসপি (Bahujan Samaj Party) প্রধান মায়াবতী (Mayawati) বিজেপিকে অনুরোধ করেছেন, যে কোনও ধর্মের সম্পর্কে আপত্তিকর ভাষা ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হোক। গতকাল দুই বিজেপি (BJP) নেতাকে সাসপেন্ড করেছে গেরুয়া শিবির। যার পর এদিন টুইটারে মায়াবতী লেখেন, “কোনও ধর্মের জন্য অপত্তিকর ভাষা ব্যবহার করা উপযুক্ত নয়। এই বিষয়ে বিজেপির উচিত কঠোরভাবে তাঁর লোকেদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া। শুধুমাত্র তাঁদেরকে সাসপেন্ড করলেই চলবে না, পাঠানো উচিত জেলে”।

বিএসপি প্রধানের কথায়, সমস্ত ধর্মের প্রতি সকলেরই শ্রদ্ধাশীল হওয়া প্রয়োজন। বিজেপি নুপুর শর্মার প্রাথমিক সদস্যপদ কেড়ে নিয়েছে। নবী মহম্মদের বিয়ে নিয়ে তাঁর কুরুচিকর মন্তব্যতে সায় দেয় নি গেরুয়া শিবির। এমনকি সংখ্যালঘুদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের পর দলের মিডিয়া প্রধান নবীন কুমার জিন্দালকেও বহিষ্কার করেছে বিজেপি।

আরও পড়ুন: ফের উদ্বেগ বাড়াচ্ছে দেশের কোভিড গ্রাফ, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪,৫১৮ জন

উল্লেখ্য, জ্ঞানবাপী মসজিদ বিতর্ক চলাকালীন একটি টেলিভিশন শোতে হজরত মহম্মদকে নিয়ে কুরুচিকর মন্তব্য করেছিলেন নুপুর শর্মা। যাতে নতুন করে বিতর্কের ঝড় ওঠে। অন্যদিকে মুসলিম গোষ্ঠীদের নিয়ে একটি আপত্তিকর টুইট করেছিলেন জিন্দাল। যদিওবা তা পরে মুছে ফেলেছিলেন তিনি। কিন্তু প্রায়শই এই ধরনের উস্কানিমূলক মন্তব্য তাঁরা করে থাকেন বলে, অভিযোগ উঠেছে। অবশেষে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত করার কারণে তাঁদের সাসপেন্ড করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি।

দিল্লি বিজেপির সভাপতি আদেশ গুপ্তা বলেছেন, প্রাথমিক সদস্যপদ বাতিল করার সঙ্গে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে নুপুর শর্মা ও জিন্দালকে। অন্যদিকে মুম্বই পুলিশ একটি মামলা রুজু করেছে মিসেস শর্মার বিরুদ্ধে। যেখানে বলা হয়েছে, জ্ঞানবাপী বিতর্ক চলাকালীন একটি টিভি শোতে এসে নবী মহম্মদ সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন তিনি। এদিকে মায়াবতী কানপুরে যে সহিংসতার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার জন্য দায়ী করেছে উত্তরপ্রদেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতিকে। তাঁর দাবি, যে কারণে এই ধরণের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিক মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকার।