Abdul Qadeer : বিনামূল্যে স্ন্যাকস থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার কি নেই এই ক্যাবে? দিল্লির ক্যাব ড্রাইভার এখন ভাইরাল

162
Abdul Qadeer : বিনামূল্যে স্ন্যাকস থেকে হ্যান্ড স্যানিটাইজার কি নেই এই ক্যাবে? দিল্লির ক্যাব ড্রাইভার এখন ভাইরাল
যাত্রীদের যাতে বিন্দুমাত্র অসুবিধা না হয় তার যাবতীয় সরঞ্জাম করে রেখেছেন আব্দুল

মহানগর ডেস্ক : দিল্লি(Delhi) গেলে অন্তত একবার হলেও আব্দুল কাদিরের(Abdul Qadeer) ক্যাবে আপনাকে একবার চড়তেই হবে। প্যাসেঞ্জারকে সুরক্ষা দেওয়া হোক কিংবা সারপ্রাইজ গোটা দিল্লি ঢুরলেও দ্বিতীয় খুঁজে পাওয়া যাবে না এমন ক্যাব। কিছু ভাবছেন কী এমন জাদু রয়েছে সেখানে। তাহলে একটু গুছিয়ে বলা যাক। এক বিশেষ সংস্থার ক্যাব চালালেও তাঁর গাড়ি পরিচিত ‘আব্দুল কাদিরের ক্যাব'(Abdul Qadeer) নামে।

যাত্রী সঙ্গে সঙ্গে ওঠার পর থেকেই মন খুশি করার জন্য সাজিয়ে রেখেছে ফলের জুস, টুকটাক মুখশুদ্ধি,খাবার।শুধু তাই নয়, রয়েছে হ্যান্ড স্যানিটাইজার,টিস্যু, নেলপলিশ রিমুভার, সংবাদপত্র আরো অনেক কিছু। যাত্রীদের যাতে বিন্দুমাত্র অসুবিধা না হয় তার যাবতীয় সরঞ্জাম করে রেখেছেন আব্দুল(Abdul Qadeer)। সবকিছু মেলে বিনামূল্যে।

আরও পড়ুন, একেই বলে বাঁদরের বাঁদরামি! বন্ধু কুকুরকে নিয়ে দোকানে হানা

কিন্তু হঠাৎ এমন অদ্ভুত ভাবনার কারন কী? মাত্র ৩০ বছর বয়সে অতিমারি তাঁর একমাত্র চাকরি খেয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই এই বয়সের নতুন করে ইন্টারভিউ দিয়ে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করতে অনেকেই ভয় পান। আব্দুলের ক্ষেত্রেও তেমনটা হয়েছিল। ভেবেছিলেন কিছু এমন করতে হবে যাতে পরিবার অভুক্ত না থাকে কারোর কাছে হাতও না পাততে হয়। ভাবতে ভাবতেই নিজের গাড়ি চালানোর ক্ষমতাকে দিয়েই শুরু করলেন এক নতুন যুদ্ধ। তবে দিল্লির মতো ব্যস্ত শহরে এমন প্রচুর ক্যাবচালক রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে নিজেকে অন্য ভাবে মেলে ধরতে এমন প্রয়াস আব্দুলের। রয়েছে ওষুধপত্র থেকে শুরু করে জলের বোতল। এমনকি যাত্রীর যদি বিন্দুমাত্র সমস্যা দেখা দেয় তার জন্য রয়েছে ফাস্টেড বক্সও। আর এই সবকিছুই একেবারে বিনামূল্যে। আব্দুলের মতে ,রাস্তায় বেরোলে এমন কত কিছুই আমাদের প্রয়োজন হয় যা সবসময় হাতের কাছে পাওয়া যায় না। সেই চাহিদা কিছুটা পূরণ করতেই এমন ভাবনা মাথায় আসে তাঁর।

আরও পড়ুন, ‘ক্রাশ’কে বিয়ে করতে চান? চিন্তা নেই উপায় বাতলাচ্ছে বাংলা সিরিয়াল

আব্দুলের(Abdul Qadeer) এই কাজ এখন দিল্লিবাসির মুখে মুখে। প্রত্যেকে একবার হলেও তাঁর এই অদ্ভুত ক্যাবের সাক্ষী থাকতে চান। মাঝে মাঝে খুশি হয়ে ভাড়ার থেকে বেশি টাকা দিয়ে থাকেন যাত্রীরা। তবে সে টাকা নিতে মোটেই রাজি নয় সে। কিন্তু যাত্রী বেশি জোর করলে না বলেন না তিনি। যদিও তাঁর মেয়ে বুদ্ধি করে অধিক টাকা জমানোর জন্য একটি পিগি ব্যাংক খুলে দিয়েছে। গাড়ির সিটেই বাধা রয়েছে সেই পিগি ব্যাংক আর তাতে লেখা রয়েছে দুঃস্থ শিশুদের সাহায্যের জন্য।

Abdul Qadeer