বড় সাফল্য, লস্করের ২ শক্তিশালী জঙ্গিকে খতম করল ভারতীয় সেনা

65

মহানগর ডেস্ক: উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে উপত্যাকা। কাশ্মীরি পণ্ডিতকে জঙ্গিরা খুন করার পর থেকে তার প্রভাব ছড়িয়েছে গোটা দেশে। এমন পরিস্থিতিতে বান্দিপোরা জেলার আরাগাম এলাকায় জঙ্গিদের একটি ডেরার সন্ধান পান জওয়ানরা। সেখানে অভিযান চালিয়ে লস্কর-ই-তইবার দুই জঙ্গিকে নিহত করে নিরাপত্তারক্ষীরা।

শুক্রবার বান্দিপোরা জেলার আরাগাম এলাকায় গোপন সূত্রে খবর পেয়ে আধার সেনা এবং কাশ্মীরি পুলিশ যৌথভাবে অভিযান চালায়। হাজিরা যাতে কোনোভাবেই এলাকা ছেড়ে পালাতে না পারে তার জন্য গোটা এলাকা ঘিরে ফেলেছিল নিরাপত্তারক্ষীরা। আর তারপরই শুরু হয় গুলির লড়াই বাহিনীর সঙ্গে সন্ত্রাসবাদীদের গুলির লড়াই এ প্রাণ হারায় ২ লস্করের জঙ্গি। ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে একে-৪৭ নামক বন্দুক সহ প্রচুর পরিমাণে আগ্নেয়াস্ত্র।

জানা গিয়েছে, নিয়ত দুই জঙ্গির নাম ফয়সল ওরফে সিকন্দর এবং ওপর একজন হল আবু উক্কাস। দুজনেই এক সময় ভারতীয় বাহিনীর জওয়ানকে গুলি করে মেরেছিল। তাঁদের খতম করতে পারা ভারতীয় বাহিনীর কাছে অনেক বেশি সফলতার বলে মনে করা হচ্ছে। গত ডিসেম্বর মাসে দুই পুলিশকর্মীকে খতম করেছিল ফয়সল। তাঁকে ভারতীয় বাহিনীর কাছে যেমন এক সফলতার তেমনি লস্করের জঙ্গী সংগঠনের কাছে এক বড় আঘাত বলে মনে করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার কাশ্মীরের বদগাঁওতে সরকারি অফিসে ঢুকে এক কাশ্মীরি পণ্ডিতকে গুলি করে খুনে করা হয়। জানা গিয়েছে, মৃত ওই পণ্ডিতের নাম রাহুল ভাট। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক দূরত্ব থেকে ওই ব্যক্তিকে গুলি করে জঙ্গিরা। ঘটনাটি ঘটার সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। সেখানেই চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। তাঁর শেষকৃত্যের অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছিল বহু মানুষের ভিড়।

এই ঘটনা ঘটার পরই পুলিশ কর্মীর মৃত্যুতে চাঞ্চল্য ছড়ায় গোটা ভূস্বর্গ জুড়ে। জানা গিয়েছে, মৃত পুলিশকর্মীর নাম রিয়াজ আহমাদ ঠোকার। শুক্রবার সকালে এই পুলিশ কনস্টেবলটির গুদারু এলাকার বাড়িতে এসে তাঁর দিকে লক্ষ্য করে আচকাই গুলি চালায় জঙ্গিরা। সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে উদ্ধার করে নিয়ে যাওয়া হয় ৯২ বেসের সেনা হাসপাতালে। কিন্তু সেখানেও চিকিৎসকরা শেষ চেষ্টা করেও প্রাণ বাঁচাতে পারেননি অফিসারের।