পরাজয় ঠেকাতে অযোধ্যায় প্রার্থী হচ্ছেন যোগী আদিত্যনাথ!

12

নিজস্ব প্রতিনিধি: স্বস্তিতে নেই উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্য নাথ! ভোটের মুখে বিজেপি ছাড়ছেন একের পর এক বিধায়ক। যোগ দিচ্ছেন শত্রু শিবিরে। স্বাভাবিকভাবেই অস্বস্তিতে যোগী সরকার। তবে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী যোগীর জয় সুনিশ্চিত করতে তাঁকে দাঁড় করানো হতে পারে অযোধ্যা বিধানসভা কেন্দ্রে। উত্তর প্রদেশের বিজেপি নেতারা অন্তত এমনই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। বাকি কেবল প্রধানমন্ত্রীর সম্মতির।

গত বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল ভোটে উত্তর প্রদেশে জয় পায় বিজেপি। মুখ্যমন্ত্রী হন নাথ সম্প্রদায়ের যোগী আদিত্যনাথ। বিধানসভা নয়, বিধান পরিষদের সদস্য হয়েছিলেন তিনি। তবে এবার বিধানসভা ভোটেই লড়বেন। দিন কয়েক আগে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, দল যেখানে দেবে, সেখানেই লড়বেন। তবে সমস্যা অন্যত্র। কারণ যোগীর বিরুদ্ধে ক্রমেই দানা বাঁধছে ক্ষোভের পারা। যার জেরে গত ৪৮ ঘণ্টায় বিজেপি ছেড়ে সমাজবাদী পার্টিতে গিয়ে যোগ দিয়েছেন প্রায় এক ডজন বিধায়ক। ঘটনায় যারপরনাই অস্বস্তিতে যোগী সরকার। এহেন পরিস্থিতিতে যোগীকে কোথায় দাঁড় করানো যায়, তা নিয়ে চিন্তায় বিজেপি নেতৃত্ব। বছর পঞ্চাশের যোগী স্বয় পূর্ব উত্তর প্রদেশের। সেখানকার গোরক্ষপুর থেকে পাঁচবার সাংসদ হয়েছেন। তবে ওই অংশের বেশ কয়েকজন ওবিসি নেতা বিজেপি সঙ্গ ত্যাগ করে সমাজবাদী পার্টিতে গিয়ে ভিড়েছেন। যা যোগীর পক্ষে যথেষ্ঠ চিন্তার কারণ।

সেই জন্যই অযোধ্যা আসনটি বেছে নেওয়া হচ্ছে যোগীর জন্য। কারণ অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণ নিয়ে বেশ খানিকটা ফ্রন্ট ফুটে বিজেপি। তাই মোদির সম্মতি মিললে এখানেই দাঁড় করানো হতে পারে যোগীকে। তবে এই আসনটিও যোগীর পক্ষে মসৃণ হবে না খুব একটা। কারণ অযোধ্যা বরাবর সমাজবাদী পার্টির দুর্গ। তাই রাম নাম জপে এখানে বিজেপি জেতে কিনা, এখন তাই দেখার।