লকডাউনে চাকরি যায়, ‘নারীসঙ্গ’ বজায় রাখতে অপহরণের গল্প ফেঁদে গ্রেফতার যুবক

7
kolkata news

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, ব্যারাকপুর: পেশায় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থার কর্মী। ছিল বিলাসবহুল জীবনযাপন। লকডাউনে চাকরি খোয়া যায়। অর্থাভাবে নিজের বিলাসবহুল জীবনযাপনে বাধার সৃষ্টি হতে থাকে। এরপরে চলতি মাসের ২ তারিখ বাড়িতে ব্যাঙ্কে যাচ্ছি বলে বের হয়ে নিজের অপহরণের নাটক ফেঁদে বাড়িতে কখন পাঁচ লক্ষ বা দুই লক্ষ টাকা চায় নিজের ফোন থেকে ফোন করে। গোটা ঘটনাটি বাড়ির লোক নিমতা থানায় জানলে তদন্তে নেমে মোবাইলের টাওয়ার লোকেশন ট্র্যাক করে পুলিশ জানতে পারে ওই যুবক রাজারহাটের একটি জায়গায় রয়েছে।

সেখানে গেলে দেখা যায়, নিউটাউনের একটি হোটেলে মোবাইল টাওয়ার লোকেশন দেখাচ্ছে। এরপর সেখানে গিয়ে একাধিক নারীর মাঝখান থেকে তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। আজকে তাকে ব্যারাকপুর আদালতে পাঠানো হয়। পুলিশ সূত্রে খবর, পেশায় তথ্য প্রযুক্তি সংস্থার কর্মী নিমতার ওলাইচণ্ডীতলার বাদিন্দা বছর সাতাশের রনিত দে একাধিক মহিলার সঙ্গে বিলাসবহুল জীবনযাপন করত।

লকডাউনে চাকরি চলে যাওয়া অর্থাভাব দেখা দেয়। এরই মধ্যে বাবা রবীন দে সরকারি চাকরি থেকে অবসর নেন। বাবার জমানো থেকে টাকা নিয়ে নিজের বিলাসবহুল জীবনযাপন বজায় রাখতে এই ভাবে নিজের অপহরণের নাটক ফাঁদে  ‘গুণধর’ ছেলে। যদিও এ বিষয়ে পরিবারের সদস্যরা মুখ খুলতে চাননি।